27 C
Dhaka
ডিসেম্বর ২, ২০২২

ক্যান্সার সৃষ্টিকারী রাসায়নিক উপাদান মিলেছে ওয়াসার পানিতে

স্বাস্থ্য ডেস্ক, কমিউনিটি নিউজ: ঢাকা শহরে প্রায় ১ কোটি মানুষের বাস। রাজধানীতে বাস করা এত মানুষের দৈনন্দিন ব্যবহার এবং খাবার পানির প্রধান উৎস ওয়াসা। এবার সেই পানিতেই পাওয়া গেছে ক্যান্সারসহ মানব দেহে ক্ষতিকর মারাত্মক অনেক রাসায়নিক উপাদান। ক্ষতিকারক এই উপাদানের মধ্যে রয়েছে- টেক্সটাইল, জাহাজ ভাঙাড়ি, তেল পরিশোধন, প্রসাধন সামগ্রী এবং শিল্প-কারখানায় ব্যবহার করা রাসায়নিক পদার্থ।

কিছু দিন আগে ‘পিএফএএস বাংলাদেশ সিচুয়েশন রিপোর্ট ২০২০’ নামের একটি গবেষণা হয়। গবেষণার প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী রাজধানীর লালমাটিয়ায় পানিতে সর্বোচ্চ ৮ পিপিটি (পার্টস পার ট্রিলিয়ন) মাত্রার পিএফওএ পাওয়া যায়। আর পানপাড়া ও বনানীর পানির নমুনায় এ মাত্রা ৬.৮ এবং ৫.১৮ । এছাড়াও পানপাড়া, লালমাটিয়া এবং বনানীতে পিএফওএসের পিপিটি মাত্রা পর্যায়ক্রমে ২.৬, ২.৩ এবং ১।

বিশ্বব্যাপী শিল্প উৎপাদনে বহুল ব্যবহৃত দুই রাসায়নিক যৌগ হল পারফ্লুরো অকটানোয়িক এসিড (পিএফওএ) এবং পারফ্লুরো অক্টেন সালফোনিক এসিড (পিএফওএস)। সম্প্রতি প্রকাশিত এই প্রতিবেদনের তথ্য মতে, ঢাকায় সারফেস বা পৃষ্ঠজল এবং কলের পানি উভয় স্থানেই উপাদান দুটির উপস্থিতি পাওয়া যায়।

পিএফওএ এবং পিএফওএস দুটো যৌগ মানবদেহের জন্য বিষাক্ত পার এন্ড পলিফ্লুরো অ্যালকাইল সাবটেন্স রাসায়নিক গোষ্ঠীর সদস্য। এটা প্রায় সাড়ে চার হাজারের বেশী মানবসৃষ্ট রাসায়নিক পদার্থ পিএফএওএস গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত।

এর আগে ২০১৭ সালে পার্সিস্টেন্ট অরগানিক পলিউট্যান্টসের বিষয়ে স্টকহোম কনভেনশনের পর্যালোচনা পরিষদ পিএফওএ যৌগের সাথে; উচ্চ কোলেস্টেরল, আলসারেটিভ কোলাইটিস, থাইরয়েড, টেস্টিকোলার ক্যান্সার, কিডনি ক্যান্সার এবং গর্ভকালীন উচ্চ রক্তচাপসহ মানব দেহের জটিল সব রোগের সম্পৃক্ততা চিহ্নিত করেছে।

পরীক্ষার ফলাফলে দেখা গেছে, পরিবর্তিত প্রাকৃতিক অবস্থাও পিএফএএস কোনো পরিবর্তন ঘটাতে পারে না। এই দুটি রাসায়নিক পদার্থের সাথে অনান্য পিএফএএস মিলিত হয়ে স্বাস্থ্যঝুঁকি আরও বহুগুণে বাড়িয়ে তুলে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু জাফর মাহমুদ একটি গণমাধ্যমকে বলেন, পিএফএএস অত্যন্ত বিপজ্জনক একটি রাসায়নিক পদার্থ। মানব দেহের রক্ত থেকে মস্তিষ্ক পর্যন্ত এই উপাদানগুলো প্রভাব রাখে। এদের প্রভাবে ক্যান্সার হতে পারে।

তিনি আরো বলেন, আমরা মার্কারি ও সীসার ক্ষতিকারক প্রভাব সম্পর্কে জানি। পিএফএএসের সংস্পর্শে কী ধরনের ক্ষতি হতে পারে, তা এখনও পুরোপুরি জানা যায়নি। এ উপাদানগুলো জন্মের আগেই শিশুকে আক্রান্ত করতে পারে।

অন্যদিকে, তুরাগ নদীর পানির নমুনায়, নদী মধ্যবর্তী অংশের পানিতে ৬৫.৯৬ পিপিটি মাত্রায় পিএফওএ পাওয়া গেছে বলে জানা গেছে। পিএফওএ এবং পিএফওএস ছাড়া এই এলাকাগুলোয় কলের পানি ও পৃষ্ঠজলে পিএফএএস রাসায়নিক গোষ্ঠীর প্রায় ১০টি ক্ষতিকারক উপাদান পাওয়া গেছে।

আরও সংবাদ

মস্তিষ্ককে সুস্থ রাখতে যেসব ব্যায়াম ও খাদ্য অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে

কমিউনিটি নিউজ

সিদ্ধ ডিম রেখে কতক্ষণ পর খাওয়া নিরাপদ?

কমিউনিটি নিউজ

কোথায় কত ঘন্টা বাঁচতে পারে ওমিক্রন!

কমিউনিটি নিউজ

দেশে করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণ দুই বাড়ছে

কমিউনিটি নিউজ

ইউরোপে সাড়ে ৭ কোটি ছাড়িয়েছে আক্রান্ত

কমিউনিটি নিউজ

২৪ ঘণ্টায় ৫ জনের মৃত্যু

কমিউনিটি নিউজ