30 C
Dhaka
আগস্ট ২, ২০২১

পছন্দের মানুষকে বিয়ে করতে যেভাবে পরিবারকে রাজি করবেন

ডেস্ক রিপোর্ট, কমিউনিটি নিউজ: বিয়ে এক সামাজিক বন্ধন যার সঙ্গে রয়েছে একধরনের আনন্দের সংমিশ্রণ। একজন পূর্ণবয়স্ক নারী বা পুরুষ বৈধ প্রথা অনুযায়ী জীবনসঙ্গী বেছে নেয়। পরিবারেও আনন্দ বয়ে যায় বিয়ের আয়োজনে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সেই বিয়ে হয়ে ওঠে কষ্টের ব্যাপার। ছেলে বা মেয়েকে অনেক সময় পছন্দ-অপছন্দে দ্বন্দ্বে পিষ্ট হতে হয়।

তরুণ মনে ডানা মেলে হাজারো স্বপ্ন। সেই স্বপ্নের ডানায় ভর করে একসময় তা রূপ নেয় প্রেম বা ভালোবাসার। তাইতো এই অধ্যায়ে যারা পা রেখেছেন তাদের রয়েছে অনেক অভিজ্ঞতা। আর এক্ষেত্রে বেশিরভাগ সময়ই পরিবারের সঙ্গে বিপত্তি বাধে এই প্রেম- ভালোবাসা নিয়ে।

তাইতো এই প্রেম নিয়েও কবিরা লিখেছেন নানান কবিতা হুমায়ুন আজাদ লিখেছেন, ‘যুদ্ধ এবং প্রেমে কোনোকিছু পরিকল্পনামতো হয় না’। জীবনে এমন বড় ঘটনা পরিকল্পনা ছাড়াই ঘটে যাওয়ায় পড়তে হয় বিপত্তিতে। বিপত্তি থেকে বিচ্ছেদের সাগরে ভাসতে হয় অনেককে।

তবে বিয়ের সময় প্রেম-ভালোবাসার বাইরেও পাত্র-পাত্রী পছন্দ হতে পারে। পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক পারিপার্শ্বিক কারণে বিয়ের জন্য পাত্র-পাত্রী পছন্দ হতে পারে।

প্রেম-ভালোবাসা হোক বা যে কোনোভাবে হোক; পছন্দের পাত্র-পাত্রীকে বিয়ের ক্ষেত্রে অনেক সময় রাজি হয়না পরিবার। এমন সমস্যায় যারা পড়েছেন পড়ার আশঙ্কা রয়েছে তাদের জন্য আজকের রম্য প্রতিবেদন।

পছন্দের পাত্র-পাত্রীকে বিয়েতে পরিবার রাজি করানোর কিছু উপায়:

১. আপনার বাবা-মা অথবা পরিবারের যিনি সিদ্ধান্ত দেন তিনি আপনার জন্য কেমন মেয়ে কিংবা ছেলে পছন্দ করবেন তা জানুন।আপনার পছন্দের মানুষের মধ্যে সেই গুণ থাকলে বুক ফুলিয়ে কয়েকবার হাঁফ ছাড়ুন। না থাকলে কোনো নাট্যদলে ভর্তি হয়ে অভিনয় শিখতে বলুন। যেন পরিবারের সামনে নিখুঁতভাবে অভিনয় করতে পারে।

২. আপনার মায়ের সাথে ভালো খাতির জমান। তাকে পছন্দের মানুষ সম্পর্কে বলুন। বলে দিন,এখানে বিয়ে না হলে আপনি সন্যাসী হয়ে যাবেন। দেখবেন আপনার মা সহযোগিতা করবে।

৩. বাবার বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করুন। তাদের খুব ভালোভাবে বোঝান, কেন আপনাকে এই পাত্র-পাত্রীকেই বিয়ে করতে হবে। ঘর থেকে মা আপনাকে সাপোর্ট দিলে এবং বাইরে থেকে বাবার বন্ধুরা বোঝালে আপনার টেনশান শেষ।

৪. পরিবারের কর্তা যদি বড় ভাই হন তাহলে ভাবিকে পটানো সহজ হবে। ভাবির পছন্দ বুঝে দু-একটা উপহার দেন। ভাবিকে বাসার হাতের কাজে সহযোগিতা করুন। দেখবেন ভাবি খুশি। এরপর ভাবিকে রাজি করিয়ে ফেলতে পারবেন। এখন ভাইকে বোঝানোর দায়িত্ব ভাবির।

৫. আপনার পছন্দের মানুষকে বলুন, যেভাবেই হোক যেকোনো একটা চাকরি জোগাড় করতে। ফলে আপনার পরিবার এটিকে ভালোভাবে নেবে।

৬. খুব হতাশা লাগলে ফুটপথে ভাগ্য গণনাকারী হকার, জ্যোতিষীর দাওয়াই নিতে পারেন। আসা করা যায় বন্দুকের গুলি মিস হলেও দাওয়াই মিস না হয়ে পারবে না।

৭. এসবে কাজ না হলে বাবা-মাকে দেখিয়ে দেখিয়ে কিছুটা পাগলামি করুন। দেয়াল বা পিলারের সাথে নিজের মাথায় আস্তে আঘাত করুন। ভাব ধরুন, যেন খুব জোরে আঘাত করছেন।

৮. এর পরেও পরিবার রাজি না হলে তাহলে দেশান্তরী হবান হুমকি দিন। পরিবারকে জানান, এখানে আপনার বিয়ে না দেশ ছেড়ে চলে যাবেন আর কখনো দেশের মানুষকে মুখ দেখাবেন না।

আরও সংবাদ

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে বাড়াবাড়ির করলে তাদের প্রতিহত করবে মানুষ

কমিউনিটি নিউজ

পিআরটিসি ল্যাব চালু হচ্ছে কাল, যেসব শর্ত মানতে হবে

কমিউনিটি নিউজ