30 C
Dhaka
অক্টোবর ১৫, ২০২১

রাজশাহীতে সরকারি জমি ইজারা নিয়ে অবৈধভাবে পাকা ভবন নির্মাণ

প্রতিনিধি, রাজশাহী: রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার ঝিকরা ইউনিয়নের রনশিবাড়ি বাজারে সরকারি জমি দখল করে পাকা ভবন নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। সরকারের খাস জমি ইজারা নিয়ে ভূমি নীতিমালা না মেনে অনুমোদন ছাড়াই বেআইনভাবে গড়ে তোলা হচ্ছে একের পর এক পাকা বিল্ডিং।

অবৈধভাবে এ স্থাপনা নির্মাণের ক্ষেত্রে স্থানীয় ভূমি অফিসের কতিপয় লোকজন ও জনপ্রতিনিধিদের যোগসাজসের অভিযোগ উঠেছে। পূর্বের স্থাপনা ও নির্মাণাধীন দোকানপাট গুড়িয়ে দেওয়া হলেও প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করায় ভুক্তভোগী এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। বাজারের খুদে ব্যবসায়ীরা এর প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদুল হাসান বলেন, স্থানীয় স্কুলশিক্ষকের ছেলে ও স্ত্রীর নামে জমি ইজারা দেওয়া হয়েছে। সেখানে তাঁরা দোকানঘর নির্মাণ করছেন। তবে ইজারা নেওয়া জায়গাতে স্থায়ীভাবে স্থাপনা নির্মাণ ও সরকারি জায়গাতে স্থাপনা নির্মাণের বিষয়টি জানা নেই বলে মন্তব্য করেন।

ভূমি নীতিমালা অনুযায়ী, খাস জমি ইজারা নিয়ে সেখানে কাচা দোকানপাট-ঘর ছাড়া অন্য কোন ধরণের পাকা বিল্ডিং নির্মাণের সুযোগ নেই। বিল্ডিং নির্মাণ সম্পূর্ণ বে-আইনি। আইন অনুযায়ী কর্তৃপক্ষ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে পারেন।

স্থানীয়রা জানান, রনশিবাড়ি বাজারে স্থানীয় ব্যক্তিরা দীর্ঘদিন ধরে দোকানপাট করে ব্যবসা করে আসছিলেন। সম্প্রতি পাশের জিয়ান্দপাড়া গ্রামের প্রভাবশালী স্কুলশিক্ষক ইয়াছিন আলী তাঁর স্ত্রী সাহিদা বিবি ও ছেলে ইমরান হোসেনের নামে বাজারের কিছু জমি এক বছরের জন্য উপজেলা ভূমি অফিস থেকে ইজারা নেন।

পাকাদোকানঘর নির্মাণের জন্য সেখানে থাকা খুদে ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ করা হয়। তিনি চলতি মাসে সেখানে স্থায়ী নির্মাণ কাজ শুরু করেন। এর পাশে স্থানীয় দুই প্রভাবশালী জুয়েল রানা এবং জামাল হোসেনও পাকা স্থায়ী পাকাদোকানঘর নির্মাণ শুরু করেন। সেখান থেকে উচ্ছেদ হওয়া খুদে তিন-চারজন ব্যবসায়ীরা বাজারে ফাঁকা স্থানে ইট দিয়ে অস্থায়ী দোকানঘর নির্মাণ শুরু করেন।

তবে স্থানীয় প্রশাসন জানতে পেরে তিন-চারদিন আগে খুদে ব্যবসায়ীদের নির্মাণাধীন অস্থায়ী দোকানঘর ভেঙে ফেলেন। নির্মাণের জন্য রাখা ইটও সেখান থেকে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয় প্রশাসনের পক্ষে। প্রশাসনের দাবি তাঁরা (খুদে ব্যবসায়ীরা) সরকারি জমিতে দোকানঘর নির্মাণ করছেন। তবে প্রভাবশালীদের নির্মাণাধীন স্থায়ী স্থাপনা উচ্ছেদ করা বা বাধা দেওয়া হয়নি বলে ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন।

স্থানীয় ব্যবসায়ী মকবুল হোসেন, সেকেন্দার আলী, আফজাল হোসেন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, খুদে ব্যবসায়ীদের নির্মাণাধীন অস্থায়ী দোকানঘর ভেঙে দেওয়া হলেও প্রভাবশালীদের বাধা দেওয়া হয়নি। তাঁরা নির্বিঘ্নে নীতিমালা লঙ্ঘন করে স্থায়ী স্থাপনা নির্মাণ করছেন। প্রশাসনের পক্ষপাতমূলক আচরণে লোকজনের মধ্যে নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এর প্রতিবাদে খুদে ব্যবসায়ীদের পক্ষে বাজারে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়েছে।

তবে স্কুলশিক্ষকের ছেলে ইমরান হোসেন দাবি করেন, জায়গাটি তিনি ও তাঁর মা সাহিদা বিবি ইজারা নিয়েছেন। এসময় তিনি পকেট থেকে ভূমি অফিস থেকে পাওয়া ডুপ্লিকেট কার্বন রশিদ (ডিসিআর) দেখান। তিনি স্বীকার করে তাঁদের বাড়ি দূরে এবং সরকারি নিয়ম ভেঙে স্থায়ী স্থাপনা নির্মাণ করছেন।

পাশের নির্মাণাধীন আরেক স্থাপনার মালিক জুয়েল রানা জানান, তিনিসহ অন্যরা যে স্থায়ী স্থাপনা নির্মাণ করছেন এর জন্য জায়গা ইজারা নেওয়া হয়নি। সেখানে তাঁদের অস্থায়ী দোকান ছিল তা ভেঙে স্থায়ী মজবুত করে ঘর করা হচ্ছে। তবে তিনি দাবি করেন, বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে জানিয়ে করা হচ্ছে। অবিলম্বে খুদে ব্যবসায়ীরা ওই সকল প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে সরকারী জমি গুলো রক্ষা করার দাবী জানিয়েছেন।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে নাম গোপন রাখার শর্তে একাধিক স্থানীয় জনপ্রতিনিধি বলেন, একই স্থানে ভাঙা আর গড়ার দৃশ্যে প্রশাসনের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এনিয়ে তাঁরাও বিব্রত। সামনে নির্বাচন এর প্রভাব তাঁদের প্রতি পড়বে বলে মন্তব্য করেন তারা।

কমিউনিটি/এমএইচ

আরও সংবাদ

আইবিবিএল রাজশাহী জোনের ব্যবসায় উন্নয়ন সম্মেলন অনুষ্ঠিত

কমিউনিটি নিউজ

রিং আইডির পরিচালক সাইফুল ইসলামের জামিন নামঞ্জুর

কমিউনিটি নিউজ

নানা আয়োজনে রাজশাহী কলেজে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস পালিত

কমিউনিটি নিউজ

ভারতে সয়াবিন রপ্তানির প্রভাবে রাজশাহীতে ৬০ শতাংশ পোলট্রি খামার বন্ধ

কমিউনিটি নিউজ

ক্রিকেটার নাসির-তামিমার বিয়ে অবৈধ: পিবিআই

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহীতে ভূমিদস্যুর হামলায় জমির মালিকসহ আহত ৩

কমিউনিটি নিউজ