25 C
Dhaka
ডিসেম্বর ২, ২০২২

ইফতারে দইবড়া কেন খাবেন?

স্বাস্থ্য ডেস্ক: দই বড়া (Doi Bora) এর স্বাদ একেবারেই আলাদা। যারা খয়েছেন তা বুঝতে পারবেন, আর যারা খান নাই এখনও তারা আফসোস করতেই থাকবেন। দইবড়া নামটা শুনলেই কেমন যেন জিভে জল চলে আসে। আমাদের অনেকেরই প্রিয় খাবারের তালিকায় রয়েছে এই দইবড়া। বিখ্যাত একটি খাবার। আর এই দই বড়া আমাদের দেশের বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে চড়া দামেও বিক্রি হয়। অথচ আপনি ঘরে বসে খুবই অল্প উপকরণ দিয়ে এবং স্বাস্থ্যকর উপায়ে এটি তৈরি করতে পারেন।

তাহলে জেনে নিন, কীভাবে বানাবেন দইবড়া…

উপকরণ

  •  মাষকলাইয়ের ডাল এক কাপ
  • ভাজা জিরার গুঁড়া ১/২ চা চামচ
  • চাট মসলা ১/২ চা চামচ
  • লাল মরিচের গুঁড়া ১/২ চা চামচ
  • টক দই এক কাপ
  • বিট লবণ ১/২ চা চামচ
  • চিনি দুই টেবিল চামচ
  • ধনেপাতা, পুদিনা পাতা ও কাঁচামরিচ একসঙ্গে পেস্ট করা তিন টেবিল চামচ
  • তেঁতুলের সস
  • লবণ ১ টেবিল চামচ
  • তেল ১ কাপ

দইবড়া (doi bora) বানানোর নিয়ম

  • প্রথমে মাষকলাইয়ের ডাল ভালো করে ধুয়ে সারারাত অথবা ৪ ঘন্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন।
  • মাষকলাই ডালের পানি ফেলে দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে পেস্ট তৈরি করুন। লক্ষ্য রাখবেন ব্লেন্ড করার সময় খুব বেশি পানি দেবেন না। আপনি চাইলে এর সাথে বেকিংসোডা মেশাতে পারেন। ব্যাটারটা যেন ঘন হয়। ব্যাটার ভালোভাবে তৈরি হয়েছে কিনা তা পরীক্ষা করার জন্য পানির মধ্যে সামান্য ব্যাটার ছেড়ে দিন। যদি ভেসে উঠে তবে বুঝতে পারবেন দই বড়া তৈরির জন্য পারফেক্ট ব্যাটার তৈরি হয়েছে।
  • প্যানে তেল গরম হয়ে এলে এতে বড়ার আকৃতি করে ব্যাটার দিয়ে দিন। বাদামী রং হয়ে এলে নামিয়ে ফেলুন। বড়ার তেলে দেওয়ার আগে ভালো করে ব্যাটার ফেটে নেবেন।
  • আরেকটি প্যান তেল দিয়ে মাঝারি আঁচে গরম করতে দিন। এতে হিং দিয়ে দিন। তেলে হিং ছিটে এলে নামিয়ে ফেলুন।
  • একটি পাত্রে পানি এবং লবণ মিশিয়ে নিন। এতে বড়াগুলো ডুবিয়ে রাখুন ১৫ থেকে ২০ মিনিট।
  • অন্য একটি পাত্রে টকদই, চিনি এবং লবণ একসাথে ভালো করে ফাটুন।
  • ২০ মিনিট পর বড়াগুলো নরম হয়ে এলে পানি ঝড়িয়ে টকদইয়ের মাঝে বড়াগুলো দিয়ে দিন। টকদইয়ের মধ্যে বড়াগুলো কিছুক্ষণ রাখুন।
  • এবার পরিবেশন প্লেটে দই এবং বড়া দিয়ে তার উপর টক-মিষ্টি চাটনি, ধনেপাতার চাটনি, মরিচ গুঁড়ো,জিরা গুঁড়ো এবং লবণ ছিটিয়ে দিন।
  • আমাদের দই বড়া কিন্তু প্রস্তুত হয়ে গেছে। অনেকে দইবড়াকে ঠাণ্ডা করে খেতে পছন্দ করেন। সেক্ষেত্রে, ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা হয়ে এলে পরিবেশন করুন।

প্রস্তুত

প্রথমে ডালগুলো ভালোভাবে ধুয়ে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি দিয়ে সারা রাত ভিজিয়ে রাখুন। এরপর পানিটকে ছেঁকে ডালগুলো ব্লেন্ডারে অথবা পাটায় পিষে পেস্ট করে নিন। এরপর একটি ইলেকট্রিক বিটার অথবা একটি হ্যান্ড উইস্ক দিয়ে ডালের পেস্টটাকে ভালো করে সাত-আট মিনিট ফেটে নিন।

চুলায় মাঝারি আঁচে পরিমাণমতো তেল গরম করে নিন। এরপর ডালের পেস্টগুলো অল্প অল্প করে নিয়ে তেলে ভেজে নিন। একটি বাটিতে পরিমাণমতো পানি নিয়ে তার মধ্যে ১/২ টেবিল চামচ লবণ ভালো করে মিশিয়ে নিন। এরপর এর মধ্যে ভেজে রাখা ডলের বড়াগুলো এই লবণপানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন।

একটি বাটিতে টক দই, জিরার গুঁড়া, চাট মসলা, লাল মরিচের গুঁড়া, বিট লবণ, চিনি, ধনেপাতা, পুদিনা পাতা ও কাঁচামরিচের পেস্ট ভালো করে ১/২ কাপ পানিতে মিশিয়ে নিন। এরপর আগে থেকে পানিতে ভিজিয়ে রাখা বড়াগুলো একটা একটা করে নিয়ে হাতে চেপে এর ভেতরের পানি ফেলে দিন এবং বড়াগুলোকে দইয়ের মিশ্রণে এক ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। এরপর একটা পাত্রে বড়াগুলো তুলে নিন এবং তেঁতুলের সস দিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার দই বড়া।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ 

আরও সংবাদ

মস্তিষ্ককে সুস্থ রাখতে যেসব ব্যায়াম ও খাদ্য অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে

কমিউনিটি নিউজ

সিদ্ধ ডিম রেখে কতক্ষণ পর খাওয়া নিরাপদ?

কমিউনিটি নিউজ

কোথায় কত ঘন্টা বাঁচতে পারে ওমিক্রন!

কমিউনিটি নিউজ

দেশে করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণ দুই বাড়ছে

কমিউনিটি নিউজ

ইউরোপে সাড়ে ৭ কোটি ছাড়িয়েছে আক্রান্ত

কমিউনিটি নিউজ

২৪ ঘণ্টায় ৫ জনের মৃত্যু

কমিউনিটি নিউজ