33 C
Dhaka
মে ১৫, ২০২১

পিএসএল নিলামে ৫ বাংলাদেশি

কমিউনিটিনিউজ ডেস্ক: করোনাভাইরাসের কারণে আপাতত স্থগিত রয়েছে পাকিস্তান সুপার লিগের ষষ্ঠ আসর। মার্চের ৪ তারিখ বন্ধ হওয়ার আগে ১৪টি ম্যাচ হয়েছে টুর্নামেন্টের, বাকি রয়েছে আরও ২০টি ম্যাচ। টুর্নামেন্ট শুরুর নতুন দিন-তারিখ চূড়ান্ত করেছেন আয়োজকরা। আগামী ১ জুন থেকে আবার মাঠে গড়াবে পিএসএলের ষষ্ঠ আসর। ফাইনাল ম্যাচ হবে ২০ জুন। বাকি ম্যাচগুলোর জন্য আরও একবার ড্রাফটে উঠবেন খেলোয়াড়রা। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবালরাসহ আরও ৫ বাংলাদেশি ক্রিকেটার আছেন এ তালিকায়।

আরো পড়ুন: বাংলাদেশের সিনেমায় তামিল ভিলেন

করোনা সংক্রমণ শুরু থেকেই চোখরাঙানি দিচ্ছিল পিএসএলে। তা উপেক্ষা করেই চালিয়ে নেওয়া হয় টুর্নামেন্টটি। তবে ৪ মার্চ প্রায় সাত জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব ধরা পড়লে তা স্থগিত করে দিতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আগামী ১ জুন ফের মাঠে গড়াবে টুর্নামেন্টের বাকি অংশ, চলবে ২০ জুন পর্যন্ত। এর আগে আবারও হবে নিলাম, কারণ দেশে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসর ভাইটালিটি ব্লাস্ট চলার কারণে অনেক খেলোয়াড়ই আসতে পারবেন না ইংলিশ খেলোয়াড়রা।

আরো পড়ুন: জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে পুলিশ:আইজিপি

তাদের বদলে ১৩২ ক্রিকেটারকে তোলা হয়েছে নিলামে। যাতে আছে পাঁচ বাংলাদেশি ক্রিকেটারের নাম। প্ল্যাটিনাম ক্যাটাগরিতে একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে আছেন সাকিব আল হাসান। তার সঙ্গে অন্য ক্রিকেটাররা হলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এভিন লুইস, আন্দ্রে রাসেল ও নিউজিল্যান্ডের মার্টিন গাপটিল।

আরো পড়ুন: সাকিবের অনেক পেছনে কোহলি

এদিকে পিএসএলের এই মধ্যবর্তী ড্রাফটের সর্বোচ্চ প্লাটিনাম ক্যাটাগরিতে রয়েছেন বাংলাদেশ দলের তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। পরের ক্যাটাগরি অর্থাৎ ডায়মন্ডে রয়েছেন বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবাল। এছাড়া সিলভার ক্যাটাগরিতে রয়েছে তাসকিন আহমেদ, সাব্বির রহমান, লিটন দাসদের নাম। আগামী সপ্তাহে ভার্চুয়াল সেশনে ড্রাফট অনুষ্ঠিত হবে। সেখানেই নির্ধারিত হবে টুর্নামেন্টের বাকি অংশে খেলোয়াড়দের ভাগ্য।

মে মাসে আসছে ২১ লাখ ডোজ টিকা

কমিউনিটিনিউজ ডেস্ক: করোনাভাইরাস প্রতিরোধে আগামী মে মাসের প্রথম সপ্তাহেই ২১ লাখ ডোজ টিকা আসবে।তারমধ্যে এক লাখ ডোজ টিকা দেবে কোভ্যাক্স, আর সেরাম ইনস্টিটিউট দেবে বিশ লাখ ডোজ। রোববার (২৫ এপ্রিল) সকালে স্বাস্থ্য অধিদফতরে বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মো. খুরশীদ আলম।

স্বাস্থ্য মহাপরিচালক বলেন, যেহেতু টিকা শেষ হওয়ার আগেই আমরা পাচ্ছি, সুতরাং কোনো সংকট হবে না। আর গণটিকাদানের প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রমও আমাদের চলবে। চীনের উপহারের টিকা নেওয়া হচ্ছে। এটা প্রয়োগের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দেবে করোনা বিষয়ক জাতীয় পরামর্শক কমিটি। ভারতে করোনার নতুন রূপ শনাক্ত হওয়ায় দেশটির সঙ্গে জরুরি পণ্য পরিবহন ছাড়া সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধের প্রস্তাব করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, দেশে তিনটি ফার্মাসিউটিক্যালসের করোনার টিকা তৈরি সক্ষমতা আছে। সব ধরনের টিকা ব্যবহারের সময় কিছু ক্ষতি হয়। করোনার ক্ষেত্রেও পাঁচ থেকে দশ শতাংশের মতো ক্ষতি হয়ে থাকতে পারে।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ

আরও সংবাদ

শ্রীলঙ্কা সিরিজের প্রাথমিক দল ঘোষণা

কমিউনিটি

রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়াতে ওজিলের অনুরোধ

কমিউনিটি

প্রতিষ্ঠান বন্ধ সত্যেও কর্মচারিদের বেতন দিচ্ছেন নেইমার

কমিউনিটি

ডি ভিলিয়ার্স প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন ভারতের তাজমহলে

কমিউনিটি

বিশ্ব রেকর্ড গড়ে ১০৯ বছর বয়সে নিলেন অলিম্পিক মশাল

কমিউনিটি

জেনোয়াকে ৩-১ ব্যবধানে হারালো জুভেন্তাস

কমিউনিটি