33 C
Dhaka
আগস্ট ৯, ২০২২

প্রবাসীদের জন্য চলবে বিশেষ ফ্লাইট

বাহরাইন-কুয়েতে

কমিউনিটিনিউজ ডেস্ক: ছুটিতে আসা প্রবাসীদের কাজে ফেরাতে এবং দেশে ফিরতে ইচ্ছুকদের আনতে বাহরাইন ও কুয়েত রুটেও বিশেষ ফ্লাইট চলাচলের অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ বেসরকারি বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।  শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) এ বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে বেবিচক।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এই দুই রুটে শুধুমাত্র কুয়েতের জাজিরা এয়ারওয়েজকে ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ২৫ এপ্রিল (২৪ এপ্রিল রাত ১২টা ১ মিনিট) থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত বিশেষ এ ফ্লাইট চলবে।তবে ফ্লাইট পরিচালনার কিছু শর্ত দেওয়া হয়েছে।

  • বেবিচক জানিয়েছে, এই দুই দেশ থেকে আগত প্রত্যেককে সরকার নির্ধারিত হোটেল বা কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিজ খরচে ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।
  • ঢাকা থেকে ফ্লাইট ছেড়ে যাওয়ার সময় মাঝারি আকারের এয়ারক্রাফটে যাত্রী ভরে ফ্লাইট পরিচালনা করা যাবে।
  • আকারের এয়ারক্রাফটে (মডেল ভেদে) সর্বোচ্চ ২৮০ থেকে ৩২০ জন যাত্রী বহন করা যাবে।
  • আর কুয়েত-বাহরাইন থেকে ঢাকায় ফেরার সময় মাঝারি আকারের এয়ারক্রাফটে সর্বোচ্চ ১০০ জন এবং বড় আকারের ফ্লাইটে সর্বোচ্চ ১৫০ জন যাত্রী বহন করা যাবে।

এছাড়াও প্রতিটি ফ্লাইটের ইকোনমি ক্লাসের একটি সারি ও বিজনেস ক্লাসের একটি সিট ফাঁকা রাখতে বলা হয়েছে। ফ্লাইটে কোনো যাত্রীর করোনা সন্দেহ হলে তাকে ওই সিটে রাখার নির্দেশনা দিয়েছে বেবিচক।

গত ১৫ এপ্রিল রাতে এক ভার্চুয়াল সভায় প্রবাসীদের আসা-যাওয়ার কথা বিবেচনায় পাঁচ দেশে বিশেষ ফ্লাইট চলাচলের অনুমতি দেয় বেবিচক।

  • পাঁচটি দেশ হলো- সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সিঙ্গাপুর, কাতার ও ওমান।
  • নতুন করে বাহরাইন, কুয়েতেও বিশেষ ফ্লাইট চলাচলের অনুমতি দিল।

গত ১ এপ্রিল বেবিচক থেকে দেওয়া এক বিজ্ঞপ্তিতে ইউরোপের দেশসহ (যুক্তরাজ্য ছাড়া), আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, চিলি, তুরস্ক, সাউথ আফ্রিকা, উরুগুয়ে, পেরু, বাহরাইন, জর্ডান, লেবানন, কুয়েত ও কাতারের যাত্রীদের বাংলাদেশে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ 

গ্রামাঞ্চলেও ছড়িয়ে পড়েছে করোনা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী: করোনা সংক্রমণের প্রথম দিকে রাজশাহী বিভাগের শহরগুলোতে শনাক্তের হার বেশি ছিল। সেসময় গ্রামাঞ্চলে স্বল্প সংখ্যক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরুর পর করোনা সংক্রমণ শহরাঞ্চলে বেশি হলেও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে গ্রামাঞ্চলে। ফলে আক্রান্তদের খুঁজে বের করে শতভাগ চিকিৎসার আওতায় আনা যাচ্ছে না। উপসর্গ নিয়ে ও উপসর্গহীন অনেক করোনা রোগী গ্রামে যত্রতত্র ঘুরেও বেড়াচ্ছেন।

স্বাস্থ্যকর্মী ও চিকিৎসকরা বলছেন, গ্রামে যারা আক্রান্ত হচ্ছেন, তাদের খুঁজে এনে হাসপাতালে ভর্তি করার ব্যবস্থা নেই। যদি না কেউ নিজে থেকে হাসপাতালে আসেন। যখন শারীরিক অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হচ্ছে, তখন তারা হাসপাতালে আসছেন। আর এ কারণে রাজশাহী বিভাগে করোনায় মৃতের সংখ্যা বাড়ছে।

ভূক্তভোগী স্বজনরা বলছেন, নিবিড় তদারকির অভাবে বিভাগে করোনার বিস্তার ঘটছে। রাজশাহীসহ আশপাশের জেলাতে গত ২৪ ঘণ্টায় যারা শনাক্ত হয়েছেন, তাদের অধিকাংশই গ্রাম থেকে আসা বলে জানিয়েছেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস।

এদিকে রাজশাহী বিভাগে বৃহস্পতিবার ( ২৩ এপ্রিল ২০২১) করোনাভাইরাসে আরও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।  এর মধ্যে বিভাগের রাজশাহী জেলায় দুইজন এবং বগুড়ায় একজন । এদিন  বিভাগে  নতুন করে ১৬২ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। ১৪০ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন।  শুক্রবার(২৩ এপ্রিল) বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। বিভাগের আট জেলায় এ পর্যন্ত ৪৫৯ জনের মৃত্যু হলো করোনায়।

উল্লেখ্য, বিভাগে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজার ৭৭১ জন। এদের মধ্যে ২৬ হাজার ৫৬১ জন সুস্থ হয়েছেন। বিভাগে এ পর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিন হাজার ৪৭৪ জন কোভিড-১৯ রোগী।

রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তরের সহকারী পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) আনোয়ারুল কবীর বলেন, শনাক্তদের মধ্যে যাদের শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে, তাদের শুধু হাসপাতালে ভর্তি করা হচ্ছেন। যাদের করোনা শনাক্ত হলেও উপসর্গ নেই তাদের বাড়িতে বা হোম আইসোলেশানে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ

আরও সংবাদ

শীঘ্রই বাড়ছে গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম

কমিউনিটি নিউজ

রাজধানীর হাতিরঝিল চক্রাকার বাসের ভাড়া বাড়লো

কমিউনিটি নিউজ

সাপাহারে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী উদযাপন

কমিউনিটি নিউজ

চলে গেলেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী

কমিউনিটি নিউজ

ট্রেনের ছাদে যাত্রী পরিবহন নয়, আইনগত ব্যবস্থা: হাইকোর্ট

কমিউনিটি নিউজ

কাল থেকে সারা দেশে শিডিউল করে লোডশেডিং

কমিউনিটি নিউজ