33 C
Dhaka
আগস্ট ১২, ২০২২

ইউরোপের অধিকাংশই অভিবাসী অ্যাসাইলাম আবেদন করেন

প্রবাস ডেস্ক: উন্নত জীবনের আশায় বাংলাদেশসহ তৃতীয় বিশ্বের অনেক দেশের হাজারো মানুষ পাড়ি জমান ইউরোপের অনেক দেশে। তাদের একটি বড় অংশ অবৈধভাবে ইউরোপে পা রাখেন। অর্থনৈতিক উন্নতিসহ নানা কারণে প্রতি বছরই লাখো অভিবাসী ইউরোপের উদ্দেশে পাড়ি জমান। যারা পাড়ি জমান তাদের অধিকাংশই আশ্রয় (অ্যাসাইলাম) আবেদন করেন। ইউরোপীয় ইউনিয়নের হিসাব অনুযায়ী,  ২০২০ সালে ২ লাখ ৮০ হাজার বিদেশি নাগরিক ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোতে আশ্রয় আবেদন করেছেন।

এদের মধ্যে ১ লাখ ২৭ হাজার ৭০০ জনকে শরণার্থী হিসেবে এবং ৮০ হাজার ৭০০ জনকে মানবিক কারণে, ৭২ হাজার ৬০০ জনকে সহায়ক সুরক্ষা হিসেবে আশ্রয় দিয়েছে। এদের মধ্যে ৯৮ হাজার জার্মানিতে আশ্রয় পেয়েছেন। এর পরের অবস্থানে রয়েছে স্পেন। দেশটিতে ৫১ হাজার ২০০ জন আশ্রয় পেয়েছেন। এছাড়া গ্রিসে ৩৫ হাজার ৪০০ জন, ফ্রান্সে ২৯ হাজার ৪০০ জন ও ইতালিতে ২১ হাজার ৩০০ জনকে আশ্রয় দেওয়া হয়েছে।

আশ্রয় আবেদনকারীদের মধ্যে ৭৪ হাজার ৭০০ শত জন‌ই হচ্ছেন সিরিয়ার নাগরিক। এদের ৬০ ভাগই জার্মানিতে আবেদন করেছেন। ভেনিজুয়েলার রয়েছেন ৪৭ হাজার ১০০ জন। এদের ৯৬ শতাংশই স্পেনে আবেদন করেছেন। এছাড়াও ৪২ হাজার ২০০ জন আফগান নাগরিক আশ্রয় আবেদন করেছেন। এদের ৩৫ শতাংশই আবেদন করেছেন জার্মানিতে।

২০২০ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়নে আশ্রয়প্রার্থী ২০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৭তম। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান তৃতীয়। প্রথমে রয়েছে আফগানিস্তান এবং দ্বিতীয়তে পাকিস্তান। আশ্রয় আবেদনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ১৭তম হলেও চূড়ান্তভাবে খুব কম সংখ্যক বাংলাদেশি আশ্রয় পান।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ 

আরও সংবাদ

আরব আমিরাতে ২৪ ঘণ্টায় তিন হাজার করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ২

কমিউনিটি নিউজ

বাংলাদেশে বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সি’র তালিকা প্রকাশ

কমিউনিটি নিউজ

মাল্টার জেলে আটক ১৫৬ বাংলাদেশির নামের তালিকা প্রকাশ

কমিউনিটি নিউজ

ভূমধ্যসাগরে ১৬৪ বাংলাদেশিসহ ৪৩৯ জন অভিবাসী উদ্ধার

কমিউনিটি নিউজ

মে মাসেও প্রবাসীদের আয়ের রেকর্ড

কমিউনিটি নিউজ

কর্মস্থলে ফিরতে চান মালয়েশিয়া প্রবাসীরা

কমিউনিটি নিউজ