25 C
Dhaka
ডিসেম্বর ২, ২০২২

এইচএসসিতে বৃত্তি পাওয়া সাড়ে দশ হাজার শিক্ষার্থীর তালিকা প্রকাশ

কমিউনিটিনিউজ ডেস্ক: করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের ‘অটোপাস’ দেওয়া হয়েছে। অটোপাসের ফলাফলের ভিত্তিতে ১০ হাজার ৫০১ শিক্ষার্থী দেশের বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড থেকে মেধাবৃত্তি ও সাধারণ বৃত্তি পেয়েছেন ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডর ওয়েবসাইটে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করছে সংশ্লিষ্ট বোর্ড কর্তৃপক্ষ।

সবশেষ পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ঢাকা, সিলেট, বরিশাল ও কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়া বাকি শিক্ষা বোর্ডগুলোও আজকের মধ্যে তাদের ওয়েবসাইটে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট বোর্ড কর্তৃপক্ষ।

মাউশি জানিয়েছে, এবার এইচএসসি পরীক্ষায় মেধাবৃত্তি পেয়েছে মোট এক হাজার ১২৫ শিক্ষার্থী। অন্যদিকে সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে ৯ হাজার ৩৭৬ শিক্ষার্থী। মেধাবৃত্তি পাওয়াদের মধ্যে, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ৪২৭, ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডে ৭২, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে ১৯৪, কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে ৬৯, সিলেট শিক্ষা বোর্ডে ৩১, বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে ৪১, যশোর শিক্ষা বোর্ডে ৯৪, চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডে ৮৬ ও দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডে ১১১ শিক্ষার্থী রয়েছে।

আর সাধারণ বৃত্তিপ্রাপ্তদের মধ্যে- ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে ২ হাজার ৭০০, ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডে ৬৫৯, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে এক হাজার ২৬২, কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে ৮৯৬, সিলেট শিক্ষা বোর্ডে ৫৯২, বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে ৫৭০, যশোর শিক্ষা বোর্ডে এক হাজার দুই, চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডে ৭২৯, দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডে ৯৬৬ শিক্ষার্থী রয়েছে।

যারা মেধা বৃত্তি পেয়েছেন তাদের মাসিক ৮২৫ টাকা ও বছরে এককালীন এক হাজার ৮০০ টাকা দেওয়া হবে। আর সাধারণ বৃত্তিপ্রাপ্তদের মাসে ৩৭৫ টাকা এবং বছরে এককালীন ৭৫০ টাকা দেওয়া হবে।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ

ফল ও সবজি জীবাণুমুক্ত করুন নিমিষেই

স্বাস্থ্য ডেস্ক: করোনাভাইরাস মহামারির দাপটে কাঁপছে পুরো বিশ্ব। লকডাউনে থমকে গেছে জীবন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাস হানা দিয়েছে আমাদের দেশেও। ইতোমধ্যে ভাইরাসটিতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৭৮১ জনে।

সাম্প্রতিক সময়ে জীবাণু দেখেনি বিশ্ব। ভাইরাসটির বিস্তার রোধে সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। সবাইকে থাকতে বলেছে নিজ নিজ বাসাতে। নিজেকে এবং চারপাশ পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত রাখা সবসময়ই অপরিহার্য । এখন যখন আমরা একটি অত্যন্ত সংক্রামক ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করে চলেছি, এই সময়ে তা আরও বেশি জরুরি হয়ে পড়েছে। শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও সুস্থ শরীর মহামারী থেকে নিজেকে রক্ষা করার প্রথম ধাপ। সুরক্ষিত থাকতে আপনি ঘরের মেঝে পরিষ্কারের জন্য জীবাণুনাশক ব্যবহার করতে পারেন, কিন্তু বাজার থেকে যে সবজি এবং ফল কিনে আনা হয়, সেগুলো জীবাণুমুক্ত করার উপায় কী? নকি করে বা জীবাণু দুর করবো ? জেনে নেই নিমিষেই কিভাবে রোগজীবাণুমুক্ত করা যায়…

বাজার এবং রোগজীবাণু
শীততাপ নিয়ন্ত্রিত সুপার শপ হোক কিংবা ফুটপাত থেকে, আপনি যেখান থেকেই শাকসবজি এবং ফলমূল কেনেন না কেন, এগুলো যে জীবাণুমুক্ত সেই নিশ্চয়তা আপনাকে কেউ দিতে পারবে না। বিভিন্ন উৎস থেকে সবজি এবং ফল সংগ্রহ করা হয় এবং তারপরে সেগুলো বাজারে পৌঁছায়। কীভাবে সেগুলো পরিবহণ করা হয়েছিল এবং কীভাবে রাখা হয়েছিল তা আপনি জানেন না। এছাড়াও, বাজারের স্থান সাধারণত আর্দ্র থাকে যা ব্যাকটিরিয়ার জন্য নিখুঁত প্রজনন ক্ষেত্র। সুতরাং, আপনি ঘরে যে ফল এবং শাকসবজি নিয়ে আসেন সেগুলো জীবাণুমুক্ত করাও সমান জরুরি।

টাইমস অব ইন্ডিয়া প্রকাশ করেছে এমন পাঁচটি উপায়ের কথা যা মেনে চললে ফল ও শাকসবজি জীবাণুমুক্ত করা সম্ভব। জেনে নিন সেগুলো কী-

  • জীবাণুনাশক, ক্লিনিং ওয়াইপ বা সাবান ফল ও শাকসবজি পরিষ্কারে ব্যবহার করা উচিত নয়।
  • ফলমূল ও শাকসবজি সঠিকভাবে পরিষ্কার করার পরে এগুলো সঠিক জায়গায় রাখুন। যেগুলো ফ্রিজে রাখা যায়, সেগুলো ফ্রিজে রাখুন। যেগুলো ফ্রিজে রাখার দরকার নেই সেগুলো একটি ঝুড়ি বা র্যাকে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখুন।
  • বিক্রেতাদের কাছ থেকে কেনা ফল এবং শাকসবজি সঙ্গে সঙ্গে ফ্রিজে রাখবেন না। এগুলো প্যাকেটের মধ্যেই আলাদা জায়গায় রেখে দিন।
  • শাকসবজি এবং ফলগুলো একটি বড় পাত্রে রাখুন এবং পানিতে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। আপনি গরম পানিতে এক ফোঁটা ৫০পিপিএম ক্লোরিন মিশিয়ে তাতে কয়েক মিনিটের জন্য এগুলো ডুবিয়ে রাখতে পারেন।
  • ফল ও সবজি সব সময় বিশুদ্ধ পানি দিয়ে পরিষ্কার করুন।

আরও কিছু করণীয়:

* প্যাকেটবন্দি খাবারের ক্ষেত্রে খাবারের প্যাকেট অ্যালকোহল-ভিত্তিক দ্রবণ বা সাবান এবং পরিষ্কার পানিতে মুছে জীবাণুমুক্ত করুন।

* খাবারের জিনিস ধুয়ে নেয়ার পর আপনার হাত এবং যে জায়গায় পরিষ্কার করেছেন সেই জায়গাও জীবাণুমুক্ত করে নিন। সিঙ্কের পরিষ্কারের পাশাপাশি এর চারপাশের মেঝেও পরিষ্কার করে নিন।

* ঘরে প্রবেশের সাথে সাথে ৩০ সেকেন্ডের জন্য আপনার হাত সাবান এবং পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। হাত পরিষ্কার করার আগে ঘরের ভেতরে কোনো কিছু ছোঁবেন না।

* বাড়িতে পৌঁছানোর পরে আপনার জামাকাপড় পরিবর্তন করুন এবং ব্যবহৃত কাপড়গুলো আলাদা ওয়াশিং বাক্সে রাখুন বা সম্ভব হলে ধুয়ে ফেলুন।

* বাজার থেকে ফিরে আপনি জুতা বাড়ির ভিতরে আনবেন না।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ 

আরও সংবাদ

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ফি এবারও বাড়লো

কমিউনিটি নিউজ

এইচএসসির ফল প্রকাশের তারিখ ঘোষণা

কমিউনিটি নিউজ

ফের দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণা

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহীতে এবারও এগিয়ে মেয়েরাই

কমিউনিটি নিউজ

৩০ দিনেই এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল

কমিউনিটি নিউজ

এইচএসসি পরীক্ষা শুরু ২ ডিসেম্বর

কমিউনিটি নিউজ