33 C
Dhaka
আগস্ট ৯, ২০২২

দুই সন্তানসহ স্ত্রীকে বাসস্ট্যান্ডে ফেলে পালালো স্বামী

 

ডেস্ক রিপোর্ট, কমিউনিটি নিউজ: প্রচন্ড শীতের মধ্যে ময়মনসিংহের নান্দাইল বাসস্ট্যান্ডে স্ত্রী এবং দুই শিশুকে রেখে পালিয়েছে এক স্বামী। আজ শুক্রবার (২৯ জানুয়ারি) সকালে এ ঘটনা ঘটে।

দুধের শিশুকে কোলে ও আরেক শিশুকে হাতে রেখে মোবাইল ফোনে জোরে জোরে কান্না করে কাউকে বলছেন, আমারে নিয়ে যান, আপনার কাছে কিছুই চাই না, আমি শুধু সংসার চাই। বাচ্চাগুলো কান্না করছে। আমরা কই যাবো। আপনার পায়ে ধরি।

জানা গেছে, বিয়ের দশ বছরের মাথায় প্রথমবার তাকে শ্বশুর বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে নান্দাইল বাসস্ট্যান্ডে রেখে পালিয়ে যায় স্বামী। ফোন দিলে তার আর সংসার করা সম্ভব না বলে ফোন কেটে দেয়। ভবিষ্যতের কথা ভেবে কান্নায় ভেঙে পড়েন এই নারী।

বাসস্ট্যান্ডের টিকেট মাস্টার মুন্না মিয়া বলেন, খুব ভোরে এই নারী শিশু সন্তানদের নিয়ে এখানে আসে। ওই নারী মোবাইল ফোনে কার সাথে যেন উচ্চস্বরে কান্না করে কথা বলছে। শুনতে পাই তাকে নিয়ে যাওয়ার জন্য আকুতি-মিনতি করছে। ফোন কেটে যাওয়ায় কখনো কখনো হ্যালো হ্যালো করেও সাড়া না পেয়ে কান্না করছেন।

ওই নারী জানান, তাঁর নাম ঋতু পর্ণা (২৩)। তিনি জামালপুর সদরের লাহিড়িকান্দার সামছুল হকের মেয়ে। ছোট বেলা থেকে তিনি ঢাকার গার্মেন্টে কাজ করেছেন। সেই পরিচয় সূত্র ধরে গত দশ বছর আগে বিয়ে হয় মোশারফ হোসেনের (২৫) সাথে। কয়েক বছর ঢাকায় থাকার পর বাবার বাড়িতে চলে আসে সে। স্বামী মোশারফও মাঝে মাঝে আসতো। এর মধ্যে তার ছেলে নিরব (৪) ও মেয়ে রূপা (৬ মাস) নামে দুই সন্তানের জন্ম হয়। সন্তান জন্ম দেওয়ার পর থেকেই ভরণপোষণ দিতে অনীহা শুরু হয় স্বামীর। এক পর্যায়ে শ্বশুর বাড়ি যেতে চাইলে বিভিন্ন বাহানায় এড়িয়ে যায়।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) দুই সন্তানের অসুস্থতার কথা বলে টাকা দাবি করলে স্বামী মোশারফ টাকা দিতে অস্বীকার করে। পরে সন্তানসহ নিজে আত্মহত্যার হুমকি দিলে তাকে ফোনে নান্দাইলে আসার জন্য বলে। কথা মতো গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর নান্দাইল সদরে এসে স্বামীকে খোঁজ করে পায়নি।

এমতাবস্থায় তাঁর সাথে থাকা স্বামীর একটি জন্মনিবন্ধনের ঠিকানা ধরে লোকজনের সহায়তায় নান্দাইলের শেরপুর ইউনিয়নের লংগারপার গ্রামে গিয়ে স্বামীর খোঁজ পায়। সেখানে রাত যাপনের পর তাকে শুক্রবার ভোরে নিয়ে আসে নান্দাইল বাসস্ট্যান্ডে। তারপর এখুসি আসছি বলে বাসে উঠে চলে যায় মোশারফ। এরপর থেকে অনেক্ষণ অপেক্ষা করেও স্বামীর খোঁজ পায়নি তিনি।

ফোনে বারবার চেষ্টা করার পর একবার সংযোগ পেলে স্বামী জানায়, তার পক্ষে সংসার করা সম্ভব না। তাকে নিজ বাড়িতে চলে যাওয়ার জন্য ফোনে বলে দেয়। এতে দিশেহারা হয়ে সকালেই বাবার বাড়ির উদ্দেশে সন্তানদের নিয়ে চলে যান এ নারী।

নান্দাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, এমন কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে খোঁজ করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও সংবাদ

মান্দায় নৌকার প্রার্থীর তাণ্ডব, নারীসহ চার ভোটারকে পিটিয়ে যখম

কমিউনিটি নিউজ

এবার সেই বিচারকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : আইনমন্ত্রী

কমিউনিটি নিউজ

এসকে সিনহার ১১ বছর কারাদণ্ড

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহীতে সরকারি জমি ইজারা নিয়ে অবৈধভাবে পাকা ভবন নির্মাণ

কমিউনিটি নিউজ

রিং আইডির পরিচালক সাইফুল ইসলামের জামিন নামঞ্জুর

কমিউনিটি নিউজ

ক্রিকেটার নাসির-তামিমার বিয়ে অবৈধ: পিবিআই

কমিউনিটি নিউজ