24.3 C
Dhaka
সেপ্টেম্বর ২১, ২০২১

রামেকে গাছ কাটায় প্রাণ হারালো শতাধিক শামুখখোল পাখি

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী: রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের সামনের অর্জুণ গাছ কাটায় সেখান থেকে পড়ে শতাধিক শামুকখোল পাখির বাচ্চা মারা গেছে। শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর ২০২১) দুপুরের পর এই ঘটনা ঘটেছে।

বেশির ভাগ বাচ্চা গাছ থেকে পড়ে সঙ্গে সঙ্গে মারা যায়। আর যেগুলো বেঁচে ছিল, সেগুলোকে জবাই করে নিয়ে গেছেন নির্মাণ শ্রমিকেরা।

সচেতন রনাগরীকরা বলছেন, যুদ্ধ করেই যেখানে বেঁচে থাকতে হচ্ছে শামুকখোল পাখিদের। সুযোগ পেলেই মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে পাখি খেকোরা। বৃক্ষের সঙ্গে চলে পাখি মহাৎসব।

হাসপাতালের সামনের গাছগুলোতে কয়েক বছর ধরেই আবাস গড়েছে শামুকখোল পাখি। সেখানে পাখিরা ডিম দেয়, বাচ্চা তোলে। ঠিক তখনি ঠিকাদারের উদাসীনতায় আবাসস্থলসহ প্রাণ হারালো শতাধিক শামুখখোল পাখি। এটা আইননের আওতায় আনা দর বলে মনে করছেন তারা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, হাসপাতালের সামনে ড্রেন নির্মাণের কাজ চলছে। আর তাই সেখানে কাটা হয়েছে একটি অর্জুন গাছ। সেই গাছ থেকেই পড়েছে পাখির বাচ্চাগুলো।

সেখানে ২০ থেকে ২৫টি মৃত পাখির বাচ্চা পড়ে থাকতে দেখা গেছে। এছাড়া আরও অনেক পাখি শ্রমিকরা নিয়ে গেচে বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শ্রমিকরা ড্রেনের নির্মাণ কাজ করছিলো। সঙ্গে গাছও কাটা হচ্ছিলো। এক সময় গাছটি পড়ে গেলে পাখিগুলো আচড়ে পড়ে। সঙ্গে সঙ্গে শাবক পাখিগুলো মারা যায়।

অনেকে বড় পাখিগুলো নিয়ে পালিয়ে যায়। এরমধ্যে নির্মাণ শ্রমিকরাও কিছু পাখি জবেহ করে নিয়ে চলে যায়।

বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে জবাই করা আরও কিছু শামুকখোলের বাচ্চা বস্তায় ভরছিলেন কয়েকজন শ্রমিক। গাছটি পড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পাখির বাচ্চাগুলোও পড়ে যায়। যেগুলো বেঁচে ছিল, সেগুলো তাঁরা জবাই করেন। এবং বাড়ি নিয়ে যান।

দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে এ দৃশ্য দেখছিলেন রোগীর স্বজনরা।তারা বলেন, সব মিলিয়ে শতাধিক পাখির বাচ্চা মাটিতে পড়ে গেছে। দুপুরের দিকে অনেক রোগীর স্বজনেরাও কিছু পাখির বাচ্চা নিয়ে গেছেন।

ঘটনাটিকে মর্মান্তিক বলে অ্যাখ্যা দিয়েছেন পরিবেশবীদরা। একইসঙ্গে যাদের অবহেলায় এমন ঘটনা ঘটছে তাদের আইননের আওতায় আনারও দাবি জানাচ্ছেন।

এ বিষয়ে রাজশাহী বণ্যপ্রাণি সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিদর্শক জাহাঙ্গীর বারি জানান, ঘটনাটি খুবই মর্মান্তিক। যে ভিডিও তিনি দেখেছেন তাতে গা শিহরিত হয়ে ওঠে। এর আগে তিনি পাখি ও বৃক্ষ নিয়ে হাসপাতালের সঙ্গে কথা বলেছিলেন।

হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ পাখিদের কোন ধরনের ক্ষতি করবেন না বলে আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানেই এমন ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টির অনেক গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রাজশাহী বন্যপ্রাণী সংরক্ষক হাসনাত রনি বলেন, যেখানে পাখির বাচ্চাদের প্রতি একটু সহানুভূতি দেখানো হয় না, সেখানে মানুষের কি চিকিৎসা হয়, তা নিয়ে আমার প্রশ্ন আছে।

শুধু পাখির বিষ্ঠার কারণে এর আগে রামেক হাসপাতালে গাছ ও গাছের ডালপালা কেটে ফেলতে দেখা গেছে। এবার গাছ কাটার কারণে এতগুলো পাখির বাচ্চার মৃত্যু হলো। এর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া দরকার।

এ বিষয়ে রাজশাহী বার্ডস ক্লাবের সদস্য সাইফুল ইসলাম জানান, রাজশাহীতে নগরায়নের ফলে পাখিদের আবাসনের একটি সমস্যা আছে।

এরইমধ্যে গাছ ও ডালপালা কেটে ফেলায় মাঝে মাঝে পাখিগুলো আশ্রয়হীন পড়ে। এবং রাজশাহী মেডিকেলেও এর আগে পাখি তাড়াতে গাছের ডালপালা কাটা হয়েছে। তবে বর্তমানে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পাখিদের বিষয়ে মানবিক।

কিন্তু এখানকার উন্নয়ন কাজের সঙ্গেযুক্ত ঠিকাদররা বরাবরই বেশি গাছ কাটেন। পাখিদের আবাস নষ্ট করেন। এবারও তাদের অবহেলায় যে ঘটনাটি ঘটেছে তা খুবই দুঃখজনক ও মার্মান্তিক। এমন ঘটনার পুনারাবৃত্তি রোধে আইনের কঠোর প্রয়োগের বিকল্প নেই।

এ বিষয়ে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, হাসপাতালের কয়েকটি শুকনা গাছে কাটতে টেন্ডার দেয়া হয়েছে।

যেখানে পাখিদের কোন বাসা নেই। আর ২০ টি মতো পাখির মারা যাওয়ার কথা তিনি শুনেছেন। তিনি আনসার পাঠিয়েছিলেন। তবে পরে কি হয়েছে এবিষয়ে জানেন না।

হাসপাতালের পাখি হত্যার কোন সুযোগ নেই । যারা পাখি হত্যার চেষ্টা করবেন তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কমিউনিটিনিউজ/এমএএইচ

আরও সংবাদ

গোপনে ৪০ মণ সরকারি বই বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহীতে শিক্ষিকার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহীতে বেড়েছে মাছের দাম, মুরগির কেজি ২৬০ টাকা

কমিউনিটি নিউজ

শিক্ষার্থীদের লাগানো গাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

কমিউনিটি নিউজ

বাংলাদেশও উন্নতশীল দেশের কাতারে দাঁড়াবে : জনপ্রশাসন সচিব

কমিউনিটি নিউজ

গোদাগাড়ীতে ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগলের মেলা

কমিউনিটি নিউজ