33 C
Dhaka
আগস্ট ৯, ২০২২

মান্দায় বোরো ধান সংগ্রহ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, মান্দা (নওগাঁ): সারাদেশের ন্যায় নওগাঁর মান্দায় অভ্যন্তরীণ বোরো ধান সংগ্রহ ২০২১ এর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার ( ২৮ এপ্রিল২০২১) বেলা ১২টার দিকে  খাদ্য অধিদপ্তর ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে প্রসাদপুর খাদ্য গুদাম চত্বর মাঠে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে খাদ্যমন্ত্রী বাবু সাধন চন্দ্র মজুমদার (এমপি) বোরো ধান সংগ্রহের উদ্ধোধন করেন।

আরো পড়ুন : মান্দায় ভুট্টার ক্ষেত থেকে গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার

চলতি মৌসুমে বোরো ধান ক্রয়ের জন্য সরকার নিধারির্ত মূল্য তালিকা অনুযায়ী প্রতি কেজি ধান ২৭ টাকা,  সিদ্ধ চাল ৪০ টাকা এবং আতব চাল ৩৯ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। মৌসুমে এবারে মান্দায় ২ হাজার ৭শ ২৮ মে.টন বোরো ধান সংগ্রহ করা হবে বলে জানা গেছে।

আরো পড়ুন : প্রতিবেশীর অত্যাচারে উচ্ছেদ আতঙ্কে অসহায় পরিবার

প্রতিজন কৃষক সর্বোচ্চ ৩ মেট্রিকটন ধান খাদ্য গোদামে সরবরাহ করতে পারবেন। ধান সংগ্রহ ২৮ এপ্রিল থেকে আগামী ৩১ আগষ্ট পযন্ত চলবে।

আরো পড়ুন : প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ’র অভিযোগ

উদ্ধোধন অনুষ্ঠানে র্ভাচুয়ালি যুক্ত ছিলেন সাবেক বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী মুহা. ইমাজ উদ্দিন প্রামানিক এমপি। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোল্লা এমদাদুল হক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল হালিম, মান্দা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন মন্ডল, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মামুন অর রশীদ, ওসি এলএসডি মশিউর রহমান, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক বৃন্দসহ প্রমুখ।

রাজশাহী অঞ্চলে বেড়েছে আউশ আবাদের লক্ষ্যমাত্রা

communitynews.info

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী: রাজশাহী অঞ্চলে গত বছরের তুলনায় এবার আউশ উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা কিছু বেশি ধরা হয়েছে। লক্ষমাত্রা পূরণে ৪৩ হাজার ২০০ কৃষককে সার, বীজ সহায়তা দিচ্ছে সরকার। এরপরও রুক্ষ আবহওয়ায় এ বছর আউশ উৎপাদন নিয়ে অনেকটা শঙ্কা প্রকাশ করছেন কৃষকরা।

আঞ্চলিক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্য মতে, রাজশাহী অঞ্চলে গত বছর ১ লক্ষ ৮১ হাজার ৮৭৫ হেক্টর জমিতে আউশের আবাদ হয়েছিলো। এবছর লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লক্ষ ৮১ হাজার ৯৮৪ হেক্টর। উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৫ লক্ষ ৮৮ হাজার ৬০২ মেট্রিক টন। সুবিধাভোগী এসব কৃষককে ৫ কেজি বীজ, ২০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার বিতরণ করা হচ্ছে।

রাজশাহীর গোদাগাড়ী মহিশালবাড়ী এলাকার কৃষক শরিফুল ইসলাম জানান, তিনি সরকারি সহায়তার সার বীজ পেয়েছেন। এবার প্রচুর রোদ-গরম নিয়ে আউশের উৎপাদন নিয়ে শঙ্কা ছিলো। বোরো আবাদে এবার বৃষ্টি না হওয়ায় সেচ খরচ বেশি লেগেছে। আউশে সরকারি সহায়তা পাওয়ায় তিনি খুশি।

আরেক কৃষক মোহাম্মদ আলী জানান, তিনিও সরকারি এই সহায়তা পেয়েছেন। তিনি প্রায় দেড় বিঘা মতো জমিতে এবার আউশের আবাদ করবেন। এরই মধ্যে তার বীজতলা তৈরি হয়েছে।

এ বিষয়ে রাজশাহী আঞ্চলিক কৃষি অতিরিক্ত পরিচালক সিরাজুল ইসলাম জানান, রাজশাহী অঞ্চলে এবার গতবছরের চেয়ে কিছুটা বেশিই আউশের আবাদ লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য কৃষি কর্মকর্তারা মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছেন। বরেন্দ্র অঞ্চলে এবার খরা-সহিষ্ণু ব্রি-ধান ৪৮ উন্নত জাতের বীজসহ সার সহায়তা দেয়া হয়েছে। আউশ উৎপাদনে কৃষকদের প্রণোদনার অংশ হিসেবে এই সহায়তা দেয়া হয়। উন্নত এ জাতের ধান আবাদে উৎপাদনও বেশি হবে।

গোদাগাড়ি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম জানান, গোদাগাড়ি উপজেলায় ২ হাজার ৮৫০ জন কৃষককে সরকারি এ সহায়তা দেয়া হচ্ছে। এই উপজেলায় এখন কৃষক জমি ও বীজতলা তৈরিতে কাজ করছেন। ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে পুরোদমে কাজ শুরু হয়ে যাবে।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ

আরও সংবাদ

রাজশাহী কলেজে চালু হলো মেধাবৃত্তি

কমিউনিটি নিউজ

পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিলেন যুবক

কমিউনিটি নিউজ

২০ টাকার নাপা সিরাপ ৩৫ টাকায় বিক্রি, জরিমানা

কমিউনিটি নিউজ

আমের দামে খুশি রাজশাহীর চাষিরা

কমিউনিটি নিউজ

রামেক হাসপাতালে ভর্তি সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহীতে জাল ভোট দেওয়ায় আটক ২

কমিউনিটি নিউজ