33 C
Dhaka
আগস্ট ১২, ২০২২

অসহায়দের পাশে নেই কেউ

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাঘা (রাজশাহী): বৈশ্বিক এক মহা সঙ্কটের মুখোমুখি অবস্থান করছি। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে গোটা বিশ্বেই অর্থনৈতিক মন্দা তৈরি হচ্ছে। দেশে লকডাউনের ফলে মধ্যম ও নিম্ন আয়ের লোকগুলো দিশেহারা হয়ে পড়ছে। অনেকের ঘরেই খাদ্যসামগ্রীর সঙ্কট প্রকটভাবে দেখা দিচ্ছে। বিশেষ করে যারা দিনমজুর, তারা পরিবার নিয়ে অভুক্ত থাকছে। ঘর বাজারসদাই শূন্য। আয়ের সবরকম উৎস বন্ধ। কোত্থেকে দু’বেলা খাবারের ব্যবস্থা হবে তা তারা নিজেরাও জানে না। ঠিক এমন সময় রাজশাহীর বাঘায় অসহায়দের পাশে নেই কেউ।

আরো পড়ুন: বাঘায় কালবৈশাখীতে আমের ক্ষতি ২৫ কোটি টাকা

সরকার ঘোষিত দুই সপ্তাহের লকডাউনে দুস্থ, অসহায়, নিম্ন আয়ের মানুষ কাজ করতে না পেরে বেকায়দায় পড়েছে। এই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে খাদ্য কিংবা আর্থিক সহায়তা নিয়ে কেউ এগিয়ে আসেনি।

আরো পড়ুন:প্রত্যায়ন নিয়ে ধান কাটতে এলাকা ছাড়ছেন বাঘার ২০ হাজার শ্রমিক

জানা গেছে, গত বছর করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর উপজেলায় দুস্থ, অসহায়, কর্মহীন ও নিম্নবিত্তের মানুষের মাঝে সরকারি ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের উদ্যোগে এবং ব্যক্তিগতভাবে সহায়তা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু করোনায় দ্বিতীয় ঢেউয়ে সহায়তার হাত কেউ বাড়ায়নি।

আরো পড়ুন:বাঘায় পদ্মাচরজুড়ে মিষ্টি আলুর বাম্পার আবাদ

কাউন্সিল ঘোষণার পর থেকে ইতিমধ্যেই আওয়ামীলীগ ও বিএনপি’র বড় দলীয় পদ নেয়ার জন্য উর্দ্ধতণ নেতাদের কাছে ভিড় করছেন। কিন্তু করোনায় দ্বিতীয় ঢেউয়ে শনিবার (২৪ এপ্রিল) পর্যন্ত সহায়তা করতে কাউকে দেখা যায়নি। এমনকি কোন ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকেও সহায়তা করতে দেখা যায়নি।

করোনা ভাইরাসের লকডাউনে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন উপজেলার বিভিন্ন শ্রমজীবী ও নিম্ন আয়ের মানুষ। সেই সঙ্গে সাধারণ মানুষকে ঘরবন্দি করে রাখতে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ, জনপ্রতিনিধিদের সরকারিভাবে নির্দেশ দেয়া হয়।বাঘা

-চারঘাট সড়কের সিএনজি চালক আরিফ আহম্মেদ বলেন, লকডাউনের পর সড়কে সিএনজি চালাতে পারিনি। ফলে আমার মতো অনেকেই কর্মহীন হয়ে বাড়িতে বসে আছেন। কিন্তু কারো কাছে থেকে কোনো খাদ্য বা আর্থিক সহায়তা পায়নি।

আরো পড়ুন:স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি বাঘা থানার ওসি

এ বিষয়ে বাঘা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল বলেন, করোনা প্রতিরোধে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়েছে। তবে কাউন্সিল ঘোষণার পর অনেক নেতা বর্তমানে দলীয় পদ পাওয়ার জন্য উর্দ্ধতণ নেতাদের কাছে ভিড় করছেন। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে কেউ অসহায়দের পাশে নেই। তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে অতিশীর্ঘই অসহায় মানুষের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করব।

উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক ফখলুর হাসান বাবলু বলেন, আমরা দলীয়ভাবে গত করোনায় নেতাকর্মীদের সমর্থ অনুযায়ী সহযোগিতা করা হয়েছিল। তবে এবার এখন পর্যন্ত কোন সহায়তা করা হয়নি। তবে সহায়তা করার পরিকল্পপনা আছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা বলেন, গত বারের মতো অসহায়দের সহযোগিতা করার মতো কোন বরাদ্দ আসেনি। তবে ভিজিএফ এর বরাদ্দ এসেছে। উপকার ভোগীদের তালিকা প্রস্তুত করা হচ্চে। তালিকা প্রস্তুত সম্পূর্ণ হলে যথা সময়ে সহযোগিতা দেয়া হবে।

 

পিএসএল নিলামে ৫ বাংলাদেশি

কমিউনিটিনিউজ ডেস্ক: করোনাভাইরাসের কারণে আপাতত স্থগিত রয়েছে পাকিস্তান সুপার লিগের ষষ্ঠ আসর। মার্চের ৪ তারিখ বন্ধ হওয়ার আগে ১৪টি ম্যাচ হয়েছে টুর্নামেন্টের, বাকি রয়েছে আরও ২০টি ম্যাচ। টুর্নামেন্ট শুরুর নতুন দিন-তারিখ চূড়ান্ত করেছেন আয়োজকরা। আগামী ১ জুন থেকে আবার মাঠে গড়াবে পিএসএলের ষষ্ঠ আসর। ফাইনাল ম্যাচ হবে ২০ জুন। বাকি ম্যাচগুলোর জন্য আরও একবার ড্রাফটে উঠবেন খেলোয়াড়রা। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবালরাসহ আরও ৫ বাংলাদেশি ক্রিকেটার আছেন এ তালিকায়।

আরো পড়ুন: বাংলাদেশের সিনেমায় তামিল ভিলেন

করোনা সংক্রমণ শুরু থেকেই চোখরাঙানি দিচ্ছিল পিএসএলে। তা উপেক্ষা করেই চালিয়ে নেওয়া হয় টুর্নামেন্টটি। তবে ৪ মার্চ প্রায় সাত জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব ধরা পড়লে তা স্থগিত করে দিতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে আগামী ১ জুন ফের মাঠে গড়াবে টুর্নামেন্টের বাকি অংশ, চলবে ২০ জুন পর্যন্ত। এর আগে আবারও হবে নিলাম, কারণ দেশে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসর ভাইটালিটি ব্লাস্ট চলার কারণে অনেক খেলোয়াড়ই আসতে পারবেন না ইংলিশ খেলোয়াড়রা।

আরো পড়ুন: জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে পুলিশ:আইজিপি

তাদের বদলে ১৩২ ক্রিকেটারকে তোলা হয়েছে নিলামে। যাতে আছে পাঁচ বাংলাদেশি ক্রিকেটারের নাম। প্ল্যাটিনাম ক্যাটাগরিতে একমাত্র বাংলাদেশি হিসেবে আছেন সাকিব আল হাসান। তার সঙ্গে অন্য ক্রিকেটাররা হলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এভিন লুইস, আন্দ্রে রাসেল ও নিউজিল্যান্ডের মার্টিন গাপটিল।

আরো পড়ুন: সাকিবের অনেক পেছনে কোহলি

এদিকে পিএসএলের এই মধ্যবর্তী ড্রাফটের সর্বোচ্চ প্লাটিনাম ক্যাটাগরিতে রয়েছেন বাংলাদেশ দলের তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। পরের ক্যাটাগরি অর্থাৎ ডায়মন্ডে রয়েছেন বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবাল। এছাড়া সিলভার ক্যাটাগরিতে রয়েছে তাসকিন আহমেদ, সাব্বির রহমান, লিটন দাসদের নাম। আগামী সপ্তাহে ভার্চুয়াল সেশনে ড্রাফট অনুষ্ঠিত হবে। সেখানেই নির্ধারিত হবে টুর্নামেন্টের বাকি অংশে খেলোয়াড়দের ভাগ্য।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ

আরও সংবাদ

রাজশাহীতে গাঁজাসহ যুবক আটক

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহী কলেজে চালু হলো মেধাবৃত্তি

কমিউনিটি নিউজ

পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিলেন যুবক

কমিউনিটি নিউজ

২০ টাকার নাপা সিরাপ ৩৫ টাকায় বিক্রি, জরিমানা

কমিউনিটি নিউজ

আমের দামে খুশি রাজশাহীর চাষিরা

কমিউনিটি নিউজ

রামেক হাসপাতালে ভর্তি সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম

কমিউনিটি নিউজ