27 C
Dhaka
আগস্ট ১২, ২০২২

ব্যাটারির শর্ট সার্কিটের আগুনে পুড়লো বাস!

আবু হাসাদ (রাজশাহী) পুঠিয়া প্রতিনিধি: রাজশাহীর পুঠিয়ায় ব্যাটারির শর্ট সার্কিট থেকে লাগা আগুনে বাস পুড়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। অগ্নিকান্ডে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১০ টার দিকে উপজেলা সদরে অবস্থিত রাজবাড়ি সংলগ্ন লস্করপুর ডিগ্রি মহাবিদ্যা নিকেতনের সামনে পুঠিয়া আড়ানি সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ বলছে, “প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বাসের ব্যাটারির সর্ট সার্কিটের মাধ্যমে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে।”

পুঠিয়া্ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সোহরাওয়ার্দী হোসেন কমিউনিটি নিউজকে বলেন, গত ২৯ মার্চ বিকেল ৫টায় খান এন্টার প্রাইজ নামক (রাজ মেট্রো-১১০০৮৮) যাত্রীবাহী বাসটি ওই স্থানে গ্যারেজ করে রাখেন বাসের চালক। পরেরদিন ৩০ মার্চ মঙ্গলবার রাত দশটার দিকে হঠাৎ বাসে আগুন দেখে পুঠিয়া ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা স্থানীয়দের সহায়তায় প্রায় আধা ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে।ঘটনাটি সর্টসার্কিট না নাশকতা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পুঠিয়ায় ৫ দিন ধরে নিখোঁজ মাদ্রাসাছাত্র

রাজশাহীর পুঠিয়ায় জাহেদুল ইসলাম (১৫) নামের এক মাদ্রাসা ছাত্র গত ৫ দিন থেকে নিখোঁজ রয়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রের মা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

জাহেদুল ইসলাম উপজেলার বানেশ্বর নামাজগ্রামের কাঠ ব্যবসায়ি জাকতার মন্ডলের ছেলে। গত ২৫ মার্চ সকালে বাড়ি থেকে মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে সে নিখোঁজ হয়।

পিতা জাকতার মন্ডল বলেন, জাহেদুল ইসলাম রাজশাহী মহানগরীর শাহ মখদুম হাফিজিয়া মাদ্রাসায় পড়াশুনা করতো। সে ১০ দিন আগে কয়েকদিনের ছুটি নিয়ে বাড়িতে আসে। এরপর ছুটি শেষে গত ২৫ মার্চ সকালে মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে সে নিখোঁজ হয়। এরপর তাকে কোথাও খুজে না পেয়ে তার মা গত ২৯ মার্চ পুঠিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

এ বিষয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল ইসলাম বলেন, নিখোঁজ ছাত্রের সন্ধানে পুলিশ কাজ করছেন। অপরদিকে তার সকল তথ্য বিভিন্ন দপ্তরে দেয়া হয়েছে।

পুঠিয়ায় ৯ বছর ধরে জাল সনদে চাকরি শিক্ষিকার, অবশেষে…

রাজশাহীর পুঠিয়া-শিবপুরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা (শরীর চর্চা) শামীম আরা খাতুন জাল সনদে  বছর ধরে চাকরি করে আসছিলেন। এই সময়ে সরকারি কোষাগার থেকে বেতনও তুলেছেন নিয়মিত। অবশেষে খেলেন ধরা…

অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি বেসরকারী শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ যাচাই করে নিশ্চিত করেছেন। প্রতিষ্ঠান প্রধানকে ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে জেলা শিক্ষা বিভাগ নির্দেশ দিয়েছেন।

স্কুল সূত্রে জানা গেছে, শামীম আরা খাতুন রাজনৈতিক ভাবে বিশেষ তদবিরের মাধ্যমে জাল সনদে ২০১১ সালে শূন্যপদে স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা (শরীর চর্চা বিভাগে) হিসাবে যোগদান করেন। যোগদানের এক বছরের মধ্যে তিনি এমপিও ভূক্ত হন। এরপর ৯ বছর ধরে জাল সনদে চাকুরী করছেন এমন অভিযোগ উঠে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে স্কুলের পরিচালনা কমিটি গত দু’বছর আগে জেলা শিক্ষা অধিদপ্তরে একটি লিখিত অভিযোগ দেন।

জেলা শিক্ষা অধিদপ্তর ওই শিক্ষিকার সনদপত্র যাচাই করতে বেসরকারী শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। যাচাই শেষে গত ২১ মার্চ বেসরকারী শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ ওই শিক্ষিকার সনদপত্র জাল উল্লেখ করে একটি চুড়ান্ত প্রতিবেদন দেন। প্রতিবেদন আসার পর জেলা শিক্ষা অধিদপ্তর ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে স্কুল প্রধানকে নির্দেশ দেন।

তবে সহকারী শিক্ষিকা শামীম আরা খাতুনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে কোনো কথা বলবেন না বলে জানান।

শিবপুরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা আরাবিয়া সুলতানা বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ওই শিক্ষিকা যোগদানের পর থেকে তার শিক্ষা সনদ জাল বলে অভিযোগ ছিল। যার পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি আমাদের উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়। কর্তৃপক্ষ তার কাগজপত্র যাচাই বাছাই শেষে তার সনদটি জাল বলে নিশ্চিত করেছেন এই মর্মে একটি পত্র আমরা পেয়েছি। এই বিষয়টি স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল হাই মোহাম্মদ আনাছ বলেন, জাল সনদে যে শিক্ষিকা চাকুরী করছেন তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে স্কুল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কমিউনিটি/এমএইচ

আরও সংবাদ

সিদ্ধ ডিম রেখে কতক্ষণ পর খাওয়া নিরাপদ?

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহীতে গাঁজাসহ যুবক আটক

কমিউনিটি নিউজ

বিশ্ববাজারে ফের কমলো গমের দাম

কমিউনিটি নিউজ

রাজশাহী কলেজে চালু হলো মেধাবৃত্তি

কমিউনিটি নিউজ

পুলিশের ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিলেন যুবক

কমিউনিটি নিউজ

২০ টাকার নাপা সিরাপ ৩৫ টাকায় বিক্রি, জরিমানা

কমিউনিটি নিউজ