33 C
Dhaka
আগস্ট ৯, ২০২২

প্যাকেজ না নিলে দেয়া হচ্ছেনা টিসিবির পণ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী : রাজশাহীতে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ডিলারদের ট্রাক থেকে আলাদা করে কোন পণ্য খুচরা কিনতে পারছেন না ক্রেতারা। প্যাকেজের মতো কিনতে হচ্ছে। ডিলারেরা তাদের ব্যবসার সুবিধা মত  পণ্য বিক্রি করছেন। বেশ কিছু দিন ধরেই এমন নিয়ম চলছে বলে জানান সাধারণ ক্রেতারা।

প্যাকেজে পণ্য বিক্রি করায় ভোগান্তি  পড়ছেন ক্রেতারা। অথচ ‘প্যাকেজ’ করে পণ্য বিক্রির কোন নিয়ম নেই। টিসিবি কর্মকর্তা মৌখিকভাবে এ ব্যাপারে ডিলারদের সতর্ক করলেও কোন লাভ হচ্ছে না। এমন চিত্র রাজশাহীর প্রায় সব স্থানে এমনভাবে বিক্রি হচ্ছে টিসিবির পণ্য।

বৃস্পতিবার বিকেলে রাজশাহীর বিভিন্ন যায়গা ঘুরে দেখা গেছে, সবখানেই প্যাকেজ করে পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। কেউ শুধু একটি বা দুটি পণ্য নিতে চাইলে তাকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এখন নতুন করে বাড়লেও ক্রেতাদের এই লাইনে শারীরিক কোন ধলণের দূরত্ব দেখা যায়নি। গায়ের সাথে গা লাগিয়ে তারা দাঁড়িয়ে ছিলেন। দু’একজন ছাড়া কারও কারো মুখে মাস্কও দেখা যায়নি। মাস্ক ছিল না বিক্রয়কর্মীদের মুখেও।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিলার আজিম শেখ বলেন, এখন তো সবকিছুই স্বাভাবিকের মতো চলছে। কোথাও আর সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না। প্যাকেজ ছাড়া পণ্য বিক্রি না করার কারণ জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি সরাসরি অস্বীকার করেননি। তিনি বলেন, যারা শুধু একটা-দুইটা পণ্য নেবে তাদের সবার শেষে দেয়া হবে বলে জানানো হচ্ছে। অপেক্ষা করতে হবে।

টিসিবির রাজশাহী আঞ্চলিক কার্যালয় থেকে জানা গেছে, রাজশাহী মহানগরীতে এখন সাতটি পয়েন্টে ডিলারদের মাধ্যমে টিসিবির পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। বাজারে পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে গত ১৭ মার্চ থেকে টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। এখন শুধু চিনি, মসুর ডাল, সয়াবিন তেল এবং আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে। চিনি প্রতিকেজি ৫৫ টাকা, মসুর ডাল ৫৫ টাকা, পেঁয়াজ ২০ টাকা এবং সয়াবিন তেল ১০০ টাকা লিটারে বিক্রি করা হচ্ছে।

প্রতিটি ট্রাকে এক হাজার কেজি চিনি, ৭৫০ কেজি মসুর ডাল এবং এক হাজার লিটার সয়াবিন তেল দেয়া হচ্ছে। এছাড়া ৩০০ কেজি করে দেয়া হচ্ছে পেঁয়াজ। এরপর রমজানের আগে আবার নতুন পণ্যসামগ্রী যুক্ত করে বিক্রি করা হবে বলে আঞ্চলিক কার্যালয় সূত্র থেকে এমন তথ্য  জানা গেছে ।

টিসিবির আঞ্চলিক কার্যলয়ের প্রধান রবিউল মোর্শেদ বলেন, ক্রেতাদের সঙ্গে এ ধরনের আচরণ করার কোন সুযোগ নেই। যার যেটা প্রয়োজন তিনি সেটা নেবেন। প্যাকেজ করে দেয়া যাবে না। কেউ এ ধরনের কাজ যেন না করেন সে ব্যাপারে মৌখিকভাবে সতর্ক করা হয়েছে। তারপরও তারা এমনটি করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রয়োজনে ডিলারের লাইসেন্স বাতিল করা হবে।

সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার বিষয়েও আমাদের নির্দেশনা আছে। আমরা ডিলারদের কিছু টায়ার কিনে ট্রাকের সামনে রাখতে বলেছি। তাহলে টায়ারের বৃত্তের মাঝেই ক্রেতারা দাঁড়াবেন। এতে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করা যাবে। তিনি বলেন, ক্রেতারা মাস্ক না পরলে পণ্য দেয়া হবে না। একইভাবে বিক্রয়কর্মীদেরও মাস্ক পরতে হবে। করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রোধে এসব নিশ্চিত করা হবে।

কমিউনিটি/ এমএএইচ

আরও সংবাদ

দ্বাদশের ছাত্রের সাথে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীর প্রেম, দুজনেরই আত্মহত্যা

কমিউনিটি নিউজ

বিশ্ববাজারে ফের কমলো গমের দাম

কমিউনিটি নিউজ

কলার জমিতে কাটোয়া ডাটা চাষে স্বাবলম্বী নারীরা

কমিউনিটি নিউজ

রাণীনগরে চুরি যাওয়া সিএনজিসহ দুইজন গ্রেপ্তার

কমিউনিটি নিউজ

পত্নীতলায় টেন্ডার ছাড়াই সরকারি হাসপাতালের গাছ কাটার অভিযোগ

কমিউনিটি নিউজ

ডিমের হালি ৪৪, ব্রয়লারের কেজিতে বাড়লো ১০ টাকা

কমিউনিটি নিউজ