28 C
Dhaka
আগস্ট ১৩, ২০২২

হাসপাতাল থেকে ৮ শতাধিক ইনজেকশন চুরি

কমিউনিটিনিউজ ডেস্ক: ভারতের মধ্যপ্রদেশের এক সরকারি হাসপাতাল থেকে চুরি হয়ে গেছে এই ওষুধ। শনিবার (১৭ এপ্রিল) রাজ্যটির গান্ধী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল থেকে ৮৫০টি রেমডেসিভির ইনজেকশন চুরির ঘটনা ঘটেছে।

করোনায় আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে যাদের জটিলতা বেশি তাদের ক্ষেত্রেই রেমডেসিভির ব্যবহার করা হচ্ছে। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের ডিজি বলছেন, রেমডেসিভির উৎপাদন কয়েকগুণ বাড়ানো হচ্ছে। ভারতের সাতটি সংস্থা ওষুধটি তৈরি করে। তাই চাহিদা থাকলেও সরবরাহে কোনো সমস্যা হবে না।

আরো পড়ুন:

দেশে করোনায় রেকর্ড ১০২ জনের মৃত্যু

করোনাকালে ব্যবসা বেড়েছে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর

দ. আফ্রিকায় করোনায় বাংলাদেশি যুবকের মৃত্যু

অবশ্য ভারতে ওষুধ চুরির ঘটনা এবারই প্রথম নয়। কিছুদিন আগে রাজস্থানে ভারত বায়োটেকের তৈরি কোভিড-১৯ টিকা কোভ্যাক্সিনের ৩২০টি ডোজ চুরি হয়ে যায়। জয়পুরের শান্তিনগরে কানওয়াতি হাসপাতালের ভ্যাকসিন সেন্টার থেকে হিমাগারে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল টিকাগুলো। মাঝপথে টিকার ৩২টি সিসি চুরি হয়ে যায়। প্রতিটি সিসিতে টিকার ১০টি ডোজ থাকে। অর্থাৎ সব মিলিয়ে টিকার ৩২০টি ডোজ চুরি হয়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে জানিয়েছে, গত তিন সপ্তাহ ধরে মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের প্রধান শহর ভোপালে বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা। এছাড়া করোনায় আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় বেড ও অক্সিজেনের সংকটও রয়েছে শহরটিতে। তার ওপর রেমডেসিভির নিয়েও টানাটানি তো রয়েছেই। এর মধ্যেই চুরির এই ঘটনা ঘটল।

করোনায় আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয় রেমডেসিভির। করোনা প্রতিরোধে বিভিন্ন দেশে এই অ্যান্টিভাইরাল ওষুধটি সরবরাহও করা হয়েছে। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে সংক্রমণ ব্যাপক হারে বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে ভারতে প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে এই ওষুধ।

সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, রেমডেসিভিরের বণ্টন বর্তমানে নিজের হাতে রেখেছে মোদি সরকার। প্রতিটি হাসপাতালে রোগী চিকিৎসার সক্ষমতা বা বেড সংখ্যা অনুযায়ী এই ওষুধ বণ্টন করা হচ্ছে।

ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মনসুখ মানদাভিয়া জানিয়েছেন, সরকার রেমডেসিভিরের উৎপাদন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর চাহিদা বাড়ায় দাম কমানোর উদ্যোগও নেওয়া হয়েছে। প্রতি মাসে ৮০ লাখ রেমডেসিভির প্রস্তুত করার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে। খুব শিগগিরই রেমডেসিভিরের দাম কমে যাবে।

মহারাষ্ট্র, গুজরাট, মধ্যপ্রদেশের মতো রাজ্যে রেমডেসিভিরের মজুত শেষের দিকে। মহামারি শুরুর পর ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় এই ওষুধের ব্যবহার নিষিদ্ধ করে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু পরে পরিস্থিতি বিবেচনা করে এর ব্যবহারে ফের অনুমতি দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, হঠাৎ করে করোনা বৃদ্ধি পাওয়ায় কোভিডের ওষুধ নিয়েও দিশাহীন অবস্থায় রয়েছে বহু মানুষ। যার সুযোগ নিয়ে ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে তিন-চার গুণ দামে রেমডেসিভির বিক্রি হচ্ছে বলে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ 

দেশে করোনায় রেকর্ড ১০২ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক:  দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ১০২ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা দেশে একদিনে ভাইরাসটিতে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এ নিয়ে টানা তিন দিন ভাইরাসটিতে ১০০-এর বেশি করে মৃত্যু হচ্ছে। এতে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১০ হাজার ৩৮৫ জনে। শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৬৯৮ জন। মোট শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৭ লাখ ১৮ হাজার ৯৫০ জনে।

রোববার (১৮ এপ্রিল)  স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রীনা ফ্লোরা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

২৪ ঘণ্টায় ১৮ হাজার ৯২৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ হাজার ৪০৪টি। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ০৬ শতাংশ। দেশে এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫১ লাখ ৭০ হাজার ৬৭টি। মোট পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৯১ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১০২ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগেরই ৬৮ জন। এছাড়া চট্টগ্রামে ২২, রাজশাহীতে ৩, খুলনায় ১, বরিশালে ৪ এবং ময়মনসিংহে ৪ জন মারা গেছেন।

জেনে নেই কোন বিভাগে কতজনের মৃত্যু ও সুস্থ হয়েছে:

  • ঢাকা: সুস্থ ৩৯০৬ জন, মৃত্যু ৬৮ জন
  • চট্টগ্রাম: সুস্থ ১৮৯৮ জন, মৃত্যু ২২ জন
  • বরিশাল: সুস্থ ৩০ জন, মৃত্যু ৪ জন
  • খুলনা: সুস্থ ৮৯ জন, মৃত্যু ১ জন
  • রাজশাহী: সুস্থ ৬৬ জন, মৃত্যু ৩ জন
  • সিলেট: সুস্থ ৭৭ জন, মৃত্যু ০
  • রংপুর: সুস্থ ২৪ জন, মৃত্যু ০
  • ময়মনসিংহ: সুস্থ ৩১ জন, মৃত্যু ৪ জন

২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১০২ জনের মধ্যে ৫৯ জন পুরুষ, ৪৩ জন নারী। এদের মধ্যে ৯৭ জন হাসপাতালে এবং ৫ জন বাড়িতে মারা গেছেন। এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে মোট মারা যাওয়া ১০ হাজার ৩৮৫ জনের মধ্যে পুরুষ ৭ হাজার ৬৯৪ জন এবং নারী ২ হাজার ৬৯১ জন।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, মারা যাওয়া ১০২ জনের মধ্যে ৬৩ জনেরই বয়স ৬০ বছরের বেশি। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছরের ২৩, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ১৪ জন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছরের ২ জন রয়েছেন।

আরো পড়ুন:

বিশ্বের অবস্থান

করোনা মহামারির থাবায় বিশ্বজুড়ে সংক্রমণ ও প্রাণহানি অব্যাহত রয়েছে। ভয়াবহভাবে বেড়েই চলেছে ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন সাড়ে ১১ হাজারের বেশি মানুষ। একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ছাড়িয়েছে সাত লাখ ৮২ হাজার। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যাও ছাড়িয়েছে ১৪ কোটি ১২ লাখের ঘর। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩০ লাখ ২৩ হাজার। ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় বেড়েছে সংক্রমণ ও প্রাণহানির সংখ্যা।

আরো পড়ুন:

রোববার (১৮ এপ্রিল) সকালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত, মৃত্যু ও সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১১ হাজার ৫৫৬ জন। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৩০ লাখ ২৩ হাজার ৮১৩ জনে।
এছাড়া, একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭ লাখ ৮২ হাজার ৩৭৩ জন। এতে ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ কোটি ১৩ লাখ ৫৩৮ জনে।

বিশ্বে কোন দেশের অবস্থান কোথায়?

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ২৩ লাখ ৭২ হাজার ১১৯ জন করোনায় আক্রান্ত এবং ৫ লাখ ৮০ হাজার ৭৫৬ জন মারা গেছেন। লাতিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী এক কোটি ৩৯ লাখ ১৩৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৭১ হাজার ৮৮৯ জনের।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। তবে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান চতুর্থ। দেশটিতে মোট আক্রান্ত এক কোটি ৪৭ লাখ ৮২ হাজার ৪৬১ জন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৭৭ হাজার ১৬৮ জন।

এছাড়া এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে ৫২ লাখ ৬০ হাজার ১৮২ জন, রাশিয়ায় ৪৬ লাখ ৯৩ হাজার ৪৬৯ জন, যুক্তরাজ্যে ৪৩ লাখ ৮৫ হাজার ৯৩৮ জন, ইতালি ৩৮ লাখ ৫৭ হাজার ৪৪৩ জন, তুরস্কে ৪২ লাখ ১২ হাজার ৬৪৫ জন, স্পেন ৩৪ লাখ ৭ হাজার ২৮৩ জন, জার্মানি ৩১ লাখ ৩৭ হাজার ৯০৭ জন এবং মেক্সিকোতে ২৩ লাখ ৪ হাজার ৯৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে এক লাখ ৫৯৩ জন, রাশিয়ায় এক লাখ ৫ হাজার ১৯৩ জন, যুক্তরাজ্যে এক লাখ ২৭ হাজার ২৬০ জন, ইতালিতে এক লাখ ১৬ হাজার ৬৭৬ জন, তুরস্কে ৩৫ হাজার ৬০৮ জন, স্পেনে ৭৬ হাজার ৯৮১ জন, জার্মানিতে ৮০ হাজার ৫২৬ জন এবং মেক্সিকোতে ২ লাখ ১২ হাজার ২২৮ জন মারা গেছেন।

কমিউনিটিনিউজ/ এমএএইচ 

আরও সংবাদ

বিশ্ববাজারে কমেছে গম ও ভুট্টার দাম

কমিউনিটি নিউজ

শ্রীলঙ্কায় এক ধাক্কায় বিদ্যুতের দাম বাড়লো ৭৫ শতাংশ

কমিউনিটি নিউজ

৩ বছরের সর্বোচ্চে পৌঁছেছে ইইউ’র ভুট্টার আমদানি

কমিউনিটি নিউজ

কানাডার ৯৪ লাখ টন যব উৎপাদনের সম্ভাবনা

কমিউনিটি নিউজ

গোপনে নৌঘাঁটিতে আশ্রয় রাজাপক্ষের, বিক্ষোভে উত্তাল শ্রীলঙ্কা

কমিউনিটি নিউজ

ইউক্রেনে আসলে কত লোক মারা গেলো?

কমিউনিটি নিউজ